সুস্বাস্থ্য.কম

সুস্থ্য দেহ ও সতেজ মনের জন্য...

  • Increase font size
  • Default font size
  • Decrease font size

পিত্তথলির প্রদাহ (Cholecystitis / Acalculous Cholecystitis)

E-mail Print

পিত্তথলির প্রদাহ বা ইনফ্লামেশন কে বলা হয় কলিসিস্টাইটিস। অনেকের ধারনা পিত্তথলিতে পাথর হলেই শুধু এ রোগ হয় কিন্ত বাস্তবতা ভিন্ন, পাথর হওয়া ছাড়াও এ রোগ হতে পারে। এ রোগ হলে পেটের উপরের দিকে ডান পাশে তীব্র ব্যথা হয় যাকে অনেকে দম বন্ধ হয়ে যাওয়া ব্যথা বলে থাকেন। এটা সাধারনত মিনিট খানেক স্থায়ী হয় তবে তা ঘণ্টা খানেক ও থাকতে পারে। ব্যথাটি পেটের পিছনের দিকে, কাধে, পেটের মাঝ বরাবর এবং বুকের ভেতরেও ছড়িয়ে পরতে পারে। সেই সাথে বমি বমি লাগা বা বমি করে ফেলা, হাল্কা জ্বর এই সব উপসর্গও থাকতে পারে।

কলিসিস্টাইটিস এর ব্যথা অত্যন্ত তীব্র এবং এমন ব্যথা হলে সাথে সাথে রোগীর হাসপাতালে ভর্তি হয়ে যাওয়া উচিতরোগটি নিশ্চিত করার জন্য প্রথমেই পেটের আল্ট্রাসনোগ্রাম পরীক্ষাটি করে নিতে হয়, সেই সাথে কিছু রক্তের পরীক্ষা, ইসিজি, এক্সরে এই সব পরীক্ষা করে দেখতে হয় ব্যথার অন্য কোনো কারন আছে কিনাএছাড়াধরনের রোগীর খুব গ্যাসের সমস্যা থাকে দেখে অনেক সময় পাকস্থলীএন্ডোসকোপি পরীক্ষা করে দেখতে হয় তাতে আলসার হয়েছে কিনাপশ্চিমা দেশগুলোতে অনেক সময় এই রোগে কোলাঞ্জিওগ্রাম অথবা ,আর,সি,পি পরীক্ষাটিও করিয়ে নেয়া হয়

ব্যথা নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীকে মুখের সবধরনের খাবার বন্ধ করে স্যালাইন দেয়া হয়, সেই সাথে ব্যথার অসুধ, গ্যাসের অসুধ এবং এন্টিবায়োটিকও দেয়া হয়৯০% এর বেশী রোগীই এই চিকিৎসাতে সুস্থ হয়ে যানএরপর চিকিৎসক রোগের কারন প্রকৃতি বুঝে রোগীকে অপারশন করে পিত্তথলি ফেলে দেবার (Cholecystectomy) প্রয়োজন আছে কিনা তার পরামর্শ দেনঅনেক সময়ই এই রোগে রোগীর অপারেশন বা কলিসিস্টেকটমি করার প্রয়োজন হয় তবে অনেক সময় শুধু অসুধ সেবনেও রোগী ভালো থাকতে পারেনঅবশ্য এটা নির্ভর করে রোগটি কি কারনে হয়েছে তার উপরতাই আপনার চিকিৎসকের কাছ থেকে জেনে নিন কি কারনে আপনার এই রোগটি হয়েছে এবং তার পরামর্শ অনুযায়ীই চিকিৎসা চালিয়ে যান

 

 

সুস্বাস্থ্য সুপারিশ করুন

এই সাইটের সকল তথ্য শুধুমাত্র চিকিৎসা সংক্রান্ত জ্ঞানার্জন ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রকাশিত যা কোন অবস্থাতেই চিকিৎসকের বিকল্প নয়রোগ নির্নয় ও তার চিকিৎসার জন্য সংশ্লিস্ট চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া বাঞ্ছনীয়